সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৫৪ পূর্বাহ্ন

সিলেট জেলা বিএনপিতে চোখ তারেক রহমানের, হতাশ মহানগরের নেতাকর্মীরা

বিশেষ প্রতিবেদকঃ মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার
  • প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৮ জুলাই, ২০২০
  • ২৬৪

সিলেট জেলা বিএনপির কার্যক্রমকে গতিশীল করতে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দিচ্ছেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। যুক্তরাজ্য থেকে ভিডিও কলের মাধ্যমে তিনি জেলা বিএনপির আহবায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদারের সাথে সম্প্রতি দুই বার কথা বলেছেন দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম নিয়ে। কিন্তু ভেঙ্গে পড়া সিলেট মহানগর বিএনপির সাথে কথা না বলে শুধু জেলা বিএনপির সাথে আলাপ করায় মহানগর বিএনপির তৃণমূলের নেতারা রয়েছেন দুশ্চিন্তায়। তারা বলছেন, মহানগর বিএনপির কার্যক্রমের উপর দলের শীর্ষ নেতা তারেক রহমান খুশি নয়। যার কারণে মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসেইনের সাথে দলের কার্যক্রম নিয়ে আপাতত কথা বলছেন না তিনি। আর নাসিম হোসেইন বলছেন, তার উপর অসন্তুষ্ট থাকলে কমিটি আরো আগে-ভাগেই ভেঙ্গে দেয়ার কথা।

২০১৬ সালের ৭ফেব্রুয়ারি সম্মেলনের মাধ্যমে সিলেট মহানগর বিএনপির কমিটি গঠন করা হয়েছিল। সভাপতি পদে নাসিম হোসেইন ও সাধারন সম্পাদক পদে বদরোজ্জামান সেলিম নির্বাচিত হয়েছিলেন। একই সাথে সম্মেলনের মাধ্যমে সিলেট জেলা বিএনপির কমিটিও করা হয়েছিল। গত বছরের ২ অক্টোবর মেয়াদোত্তীর্ণ জেলা বিএনপির ২৫ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি করা হয়। আর মহানগর বিএনপির কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে নতুন আহবায়ক কমিটি হচ্ছে হচ্ছে করে এরই মাঝে চলে গেছে দীর্ঘ সময়।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালে সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের পরপরই মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরোজ্জামান সেলিম পাড়ি জমান যুক্তরাজ্যে। ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পান মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আজমল বক্ত চৌধুরী সাদেক। কিন্তু গত বছরের জুলাই মাসে তিনিও চলে যান যুক্তরাষ্ট্রে। এক বছর থেকে বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক এডভোকেট শামিম সিদ্দিকী। মহানগর বিএনপির নেতাকর্মীরা বর্তমান অবস্থার উত্তরণ চান। নতুন কমিটি গঠন করে ঢেলে সাজানো এখন সময়ের দাবিতে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য দলের তৃণমূলের।

বর্তমানে সারা দেশে বিএনপির বিভিন্ন ইউনিটের সাথে কথা বলছেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। সম্প্রতি সিলেট জেলা বিএনপির আহবায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদারের সাথে দুই বার ভিডিও কলের মাধ্যমে তারেক রহমান কথা বলেছেন। দলের সাংগঠনিক বিষয়ে তাদের মধ্যে কথাবার্তা হয়েছে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে। সর্বশেষ গত রবিবার সিলেট, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জ জেলা বিএনপির নেতাদের সাথে ভার্চুয়াল বৈঠক হয়েছে। দলের সিলেট বিভাগীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত ও কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, যুগ্ম মহা-সচিব রুহুল কবির রিজবী, সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. সাখাওয়াত হোসেন জীবন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক কলিম উদ্দিন আহমদ মিলনসহ সংশ্লিষ্ট জেলার সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, আহবায়ক-যুগ্ম আহবায়কদের সাথে এ বৈঠক অনুষ্টিত হয়। ভার্চুয়াল এ বৈঠকে সিলেট মহানগর বিএনপির কাউকে যুক্ত করা হয়নি। যার কারণে মহানগরের নেতাকর্মীরা বলছেন, এই কমিটির দায়িত্বশীলদের উপর তারেক রহমান ক্ষুব্ধ।

তবে এমন কথা উড়িয়ে দিয়ে মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসেইন সিলেটভিউকে বলেছেন, আমার উপর তারেক রহমান ক্ষুব্ধ থাকলে অনেক আগেই তো কমিটি ভেঙ্গে দিতেন। খুশি রয়েছেন বিধায় মহানগর বিএনপির কমিটি ভাঙ্গা হয়নি এখনো। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এখন জেলা কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া চলের। দেশে কোন মহানগর বিএনপির কমিটি গঠন প্রক্রিয়া শুরু হয়নি।

দলের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মীদের সাথে আলাপ করে জানা গেছে, তাদের অন্দরমহলের কথা। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক বিএনপি নেতা ক্ষোভের সাথে বলেন, করোনার প্রাদুর্ভাবে সিলেট মহানগর বিএনপিকে পাশে পাওয়া যায়নি। যারাই সাহায্য সহযোগীতা করেছেন ব্যক্তি পর্যায়ে। অথচ সিলেট জেলা বিএনপি ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, সিলেট মহানগরীতে বিএনপির যে কয়েকজন নেতা বিত্তশালী রয়েছেন তাদের মধ্যে অন্যতম একজন হলেন মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসেইন। করোনার এই দুঃসময়ে সভাপতি নাসিম হোসেইন ব্যক্তি পর্যায়ে কিংবা সাংগঠনিকভাবে কোন সাহায্য সহযোগীতার হাত না বাড়ানোয় বিএনপির ওই নেতা তার ক্ষোভের কথা জানান।

দলের এমন পরিস্থিতিতে মহানগর বিএনপির কয়েকজন নেতা যেসব বক্তব্য দিয়েছেন তা তুলে ধরা হলো।

সিলেট মহানগর বিএনপি নির্জীব ও নিথর বলে মন্তব্য করেছেন সহ-সভাপতির দায়িত্বে থাকা সালেহ আহমদ খসরু। এ অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে আগামিতে এমন যোগ্য আহবায়ক নির্বাচন করা প্রয়োজন যার মাধ্যমে মহানগর বিএনপিতে সঠিক নেতৃত্ব বেরিয়ে আসে।

মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মিফতাহ সিদ্দিকী বলেছেন, এক সাথে সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলার আহবায়ক কমিটি গঠন করা হলেও বহাল তবিয়তে রয়েছে মহানগরের কমিটি। মেয়াদোত্তীর্ণ এই কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে নতুন কমিটি গঠনের দাবি জানান তিনি।

Share This Post

আরও পড়ুন