সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪৩ পূর্বাহ্ন

সিনহা মোহাম্মদ রাশেদের সহযোগী সিফাত,শিপ্রার মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন।

কক্সবাজার প্রতিনিধি
  • প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৬ আগস্ট, ২০২০
  • ২২৪

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের গুলিতে নিহত অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদের সহচর সিফাত ও শিপ্রার মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থী ও ফ্রিল্যান্স চলচ্চিত্র কর্মীরা।

বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) সকালে, জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন তারা। এসময় সিনহার সঙ্গে ডকুমেন্টারির কাজে কক্সবাজার যাওয়া সাহেদুল ইসলাম সিফাত ও শিপ্রা রানী দেবনাথের বিরুদ্ধে অতীতে মাদকের সঙ্গে জড়িত থাকার কোন রেকর্ড নেই দাবি করেন আন্দোলনকারিরা। তাদের হয়রানি ও প্রকৃত অপরাধীদের পার পাইয়ে দিতেই তাদের মাদক মামলায় জড়ানোসহ বিভিন্ন মামলায় জড়ানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন বক্তারা। অবিলম্বে সিফাত-শিপ্রার মুক্তি দিয়ে সিনহা মোহাম্মদ রাশেদের হত্যাকারিদের বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান তারা।

স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া বিভাগের শিক্ষার্থী সিফাত ও শিপ্রা তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী এবং তাহসিন শেষ বর্ষের ছাত্র। তিনজনই প্রোডাকশনের কাজ করছিলেন অনেকদিন ধরেই। বছরখানেক আগে তাদের পরিচয় হয় অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা রাশেদের সঙ্গে। একটি তথ্যচিত্র নির্মাণের জন্য এই তিনজনকে নিয়ে সিনহা রাশেদ কক্সবাজারে গিয়েছিলেন।
গত ৩১শ জুলাই (শুক্রবার) রাতে কক্সবাজারে পুলিশের গুলিতে খুন হন অবসরপ্রাপ্ত মেজর রাশেদ সিনহা। এসময় ঘটনাস্থল থেকেই প্রত্যক্ষদর্শী ক্যামেরাম্যান সাহেদুল ইসলাম সিফাত এবং রেস্ট হাউজে থাকা নির্মাতা শিপ্রা রানী দেবনাথ ও ভিডিও এডিটর তাহসিন রিফাত নূরকে আটক করে পুলিশ। পরে রিফাতকে ছেড়ে দেওয়া হলেও সিফাত ও শিপ্রাকে বেশকিছু মামলায় আসামি দেখিয়ে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।এদিকে, রাশেদ সিনহা হত্যাকাণ্ডের সাক্ষি সিফাত এবং টিম মেম্বার শিপ্রা রাণী দেবনাথকে পুলিশ ফাঁসানোর চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছেন দুইজনের পরিবারের সদস্যরা। সাজানো মামলায় হয়রানির অপচেষ্টা থেকে মুক্তি চায় সিফাত ও শিপ্রার পরিবার।

Share This Post

আরও পড়ুন