সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৫৮ পূর্বাহ্ন

যেমন ছিলেন গায়ক ও ব্যক্তি প্লেব্যাক সম্রাট এন্ড্রু কিশোর

বিশেষ প্রতিবেদনঃ মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার
  • প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ জুলাই, ২০২০
  • ২২১

দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সারে ভুগে না ফেরার দেশে চলে গেছেন আটবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত কিংবদন্তি শিল্পী এন্ড্রু কিশোর। তিনি চলচ্চিত্রের প্রায় ১৫ হাজার গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। এজন্য তিনি ‘প্লেব্যাক সম্রাট’ নামে পরিচিত।

১৯৫৫ সালের ৪ নভেম্বর রাজশাহীতে জন্মগ্রহণ করেন এন্ড্রু কিশোর। সেখানেই কেটেছে তার শৈশব-কৈশোর ও যৌবনকাল। গানের টানে মুক্তিযুদ্ধের পরপর তিনি রাজধানী ঢাকায় নিয়মিতভাবে বসবাস শুরু করেন।

তিনি আব্দুল আজিজ বাচ্চুর অধীনে প্রাথমিকভাবে সঙ্গীত পাঠ গ্রহণ শুরু করেন। মুক্তিযুদ্ধের পর কিশোর নজরুল, রবীন্দ্রনাথ, আধুনিক, লোক ও দেশাত্মবোধক গানে রেডিওতে তালিকাভুক্ত শিল্পী ছিলেন।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের পর নজরুল, রবীন্দ্রনাথ, আধুনিক, লোক ও দেশাত্মবোধক গান শ্রেণিতে রাজশাহী বেতারের সঙ্গে তালিকাভুক্ত ছিলেন।

এন্ড্রু কিশোরের চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক যাত্রা শুরু হয় ১৯৭৭ সালে আলম খান সুরারোপিত ‘তুফান মেইল’ চলচ্চিত্রের ‘অচিনপুরের রাজকুমারী নেই যে তার কেউ’ গানের মধ্য দিয়ে। তার রেকর্ডকৃত দ্বিতীয় গান বাদল রহমান পরিচালিত এমিলের গোয়েন্দা বাহিনী চলচ্চিত্রের ‘ধুম ধাড়াক্কা’। তবে এ জে মিন্টু পরিচালিত ১৯৭৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত প্রতীজ্ঞা চলচ্চিত্রের ‘এক চোর যায় চলে’ গানে প্রথম দর্শক তার গান শুনে। গানটি খুন জনপ্রিয়তা লাভ করে।

এরপর ১৯৮২ সাল থেকে শুরু হয় এন্ড্রু কিশোরের রাজকীয় যাত্রা। এ বছর ‘বড় ভালো লোক ছিলো’ ছবিতে ‘হায়রে মানুষ রঙিন ফানুস’ গান দিয়ে প্রথমবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জয় করেন।

তার সবচেয়ে জনপ্রিয় গানের মধ্যে রয়েছে জীবনের গল্প আছে বাকি অল্প, হায়রে মানুষ রঙের ফানুস, ডাক দিয়াছেন দয়াল আমারে, আমার সারা দেহ খেয়ো গো মাটি, আমার বুকের মধ্যে খানে, আমার বাবার মুখে প্রথম যেদিন শুনেছিলাম গান, ভেঙেছে পিঞ্জর মেলেছে ডানা, সবাই তো ভালোবাসা চায় প্রভৃতি।

নায়ক রাজ্জাক, আলমগীর, ফারুকদের প্রজন্মে দারুণ উজ্জ্বল ছিলেন এন্ড্রু কিশোর। তার কণ্ঠের যাদুতে ইলিয়াস কাঞ্চনও হয়েছে আলোকিত। পৃথিবীর যত সুখ, বেদের মেয়ে জোসনার মতো গান ইলিয়াস কাঞ্চন পেয়েছেন এই গায়কের গলায়।

এরপর নাঈম, ওমর সানি, সালমান শাহদের প্রজন্মেও তার কণ্ঠ দ্যুতি ছড়িয়েছে। এরপর রিয়াজ, শাকিল, ফেরদৌসরাও এন্ড্রু কিশোরের কণ্ঠে পেয়েছেন দর্শকপ্রিয় গান। রিয়াজের ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট ‘পড়েনা চোখের পলক’ গানটিও এন্ড্রু কিশোরের গাওয়া।

হালের সুপারস্টার শাকিব খানের জন্যও ‘কী যাদু করেছো বলোনা’, ‘নাম্বার ওয়ান শাকিব খান’সহ বহু জনপ্রিয় গান তিনি গেয়েছেন।

দীর্ঘদিন ক্যানসারের সঙ্গে যুদ্ধ করে সোমবার, ৬ জুলাই সন্ধ্যা ৬টা ৫৫ মিনিটে রাজশাহী মহানগরীর মহিষবাথান এলাকায় তার বোন ডা. শিখা বিশ্বাসের বাড়িতে এন্ড্রু কিশোর শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে দেশের সংগীতাঙ্গনে।

ব্যক্তিগত জীবনে এন্ড্রু কিশোর বিয়ে করেছেন লিপিকা এন্ড্রুকে। তাদের সুখের দাম্পত্যে রয়েছে দুই সন্তান। প্রথম সন্তানের নাম সংজ্ঞা আর দ্বিতীয় জনের নাম সপ্তক।

Share This Post

আরও পড়ুন