মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:৩১ অপরাহ্ন

মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে তাদের মায়াকান্না হাস্যকর

বিশেষ প্রতিবেদক | মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার
  • প্রকাশ : শনিবার, ১৫ আগস্ট, ২০২০
  • ২৪৭

 

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেই তারা ক্ষান্ত হননি, সংবিধান পরিবর্তন করে জাতির পিতার আত্মস্বীকৃত খুনিদের বাংলাদেশে রাজনীতি করার সুযোগ করে দিয়ে বহুদলীয় গণতন্ত্রের লেবাস দিয়েছিলেন। মানুষের সব অধিকার সেদিন কেড়ে নেয়া হয়েছিল।

তিনি বলেন, স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সঙ্গে সম্পর্কিত সবকিছুকে সেদিন নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। জয় বাংলা, বঙ্গবন্ধু ও ৭ মার্চের ভাষণ সেদিন নিষিদ্ধ ছিল। আজকে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে তাদের মায়াকান্না সত্যিই হাস্যকর।

শনিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদতবার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ কৃষক লীগ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আয়োজনে স্বেচ্ছায় রক্তদান ও অনাথদের মাঝে মৌসুমি ফল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব বলেন।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ কৃষক লীগের সভাপতি হাজি আব্দুস সালাম বাবুর সভাপতিত্বে ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজি আব্দুল রবের সঞ্চালনায় এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষক লীগের সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দসহ কৃষক লীগের নেতারা।

মন্ত্রী বলেন, সামরিক শাসক আইয়ুব খানের অত্যাচার নির্যাতনের বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করেছিল।

জিয়াউর রহমান আবার সেই বাংলাদেশে সেনা শাসনের জগদ্দলের পাথর চাপিয়ে দিয়েছিল। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূন্য করতে বারবার ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল, ষড়যন্ত্র এখনও চলছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে ২১ বার হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে।

কৃষিক্ষেত্রে আওয়ামী লীগের সাফল্যের কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, সাড়ে সাত কোটি মানুষের বাংলাদেশে যখন জমি ছিল বেশি তখন প্রয়োজনের মাত্র ৬০ শতাংশ খাদ্য আমরা উৎপাদন করতে পারতাম কিন্তু আজ আমাদের জমি কমে গেছে, মানুষ হয়েছে দ্বিগুণ তারপরও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নিজেদের খাদ্য চাহিদা মিটিয়েও উদ্বৃত্ত।।

Share This Post

আরও পড়ুন