মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ১১:০৩ অপরাহ্ন

ভূত তাড়াতে গৃহবধূকে ছাই-গোবর খাইয়ে পানিতে চুবালেন কবিরাজ!

পটুয়াখালী প্রতিনিধি
  • প্রকাশ : রবিবার, ৮ আগস্ট, ২০২১
  • ২৭

পটুয়াখালীতে ভূত তাড়ানোর নামে এক গৃহবধূকে (২২) জোর করে ছাই, গোবর ও ওয়াশিং পাউডারের গুঁড়া খাইয়ে পানিতে চুবালেন গান্ধী দাস নামে এক কবিরাজ। এতে গৃহবধূ অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে গুরুতর অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাতে পটুয়াখালী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এর আগে মঙ্গলবার সদর উপজেলার মাদারবুনিয়া ইউনিয়নের হাজিখালী গ্রামের কবিরাজ গান্ধী দাসের বাড়িতে আটকে রেখে গৃহবধূকে ব্যাপক নির্যা’তন করা হয়েছে বলে জানায় পরিবার।

ওই গৃহবধূ সদর উপজেলার বিঘাই ইউনিয়নের বাসিন্দা।

গৃহবধূ বলেন, চিকিৎসার জন্য গান্ধী দাস কবিরাজের কাছে যেতে চাইনি। আমার বাবা নিয়ে গেছেন। ভুলটা বাবার। তিনি বুঝতে পারেননি কবিরাজ এভাবে নির্যা’তন করবে। গান্ধী দাস ও তার ছেলে রিপন দাস আমাকে ঝাড়ু আর লাঠি দিয়ে মাথা থেকে পা পর্যন্ত পি’টিয়েছে। এতে শরীরের বিভিন্ন স্থান ফুলে গেছে। পরে সইতে না পেরে পালিয়ে যেতে চেয়েছি। এরপর পায়ে শিকল দিয়ে বেঁধে রেখেছে কবিরাজ।

তিনি বলেন, আমাকে ছাই, গোবর ও ওয়াশিং পাউডারের গুঁড়া খাইয়েছে কবিরাজ। খেতে চাইনি। তখন চুলের মুঠি ধরে মাটিতে ফেলে প্র’হার করেছে। এরপর চুলের মুঠি ধরে বিলের নিয়ে পানিতে চুবিয়েছে। আমার শ্বাস বন্ধ হয়ে যায়। তার হাত থেকে রক্ষা পতে চিৎকার দিয়ে সাহায্য চেয়েছি। কেউ উদ্ধার করতে এগিয়ে আসেনি। খবর পেয়ে আমার বাবা এসে উদ্ধার করেছেন। এরপর হাসপাতালে ভর্তি করেছেন।

গৃহবধূর ফুফু বলেন, আড়াই মাস আগে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে ভাতিজি। চিকিৎসার জন্য গান্ধী দাসের কাছে নিয়ে যাই। অবস্থা দেখে সে জানায়, ভূতে ধরেছে। ভূত তাড়াতে হলে ৩টা কালো ছাগল, সোয়া সের চাল, সোয়া সের মিঠাই, ৪টা নারকেল, হলুদ শাড়ি একটি, লাল গামছা একটি, আগরবাতি এক প্যাকেট, মোমবাতি ৪টি ও ধূপ ২০০ গ্রাম লাগবে।

Share This Post

আরও পড়ুন