সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:২২ পূর্বাহ্ন

তেতুলিয়ার ভাঙ্গনে অসহায় শ্রীপুর -চরগোপালপুর আর জাঙ্গালীয়া

শাহিদ আফ্রিদি নোমান, মেহেন্দিগঞ্জ, বরিশাল
  • প্রকাশ : শুক্রবার, ১৭ জুলাই, ২০২০
  • ৪২৪

এই চিত্র পদ্মার পাড়ের কিংবা মেঘনার পাড়ের নয়!এই চিত্র বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার আলিমাবাদ-চরগোপালপুরের মাধ্যদিয়ে বয়ে যাওয়া পুঁচকে নদী তেতুলিয়ার! এই তেতুলিয়ার করাল গ্রাসে আজ চরগোপালপুর প্রায় বিলীনের পথে।আলিমাবাদ ইউনিয়নটা পুরো ভেঙ্গে নতুন করে আবার গড়ে উঠেছে। বৃহত্তর আলিমাবাদেরই বৃহত্তর অংশ সদ্য ইউনিয়নে রুপ পাওয়া শ্রীপুর ইউনিয়ন আজ তেতুলিয়ার করাল গ্রাসে নিমজ্জিত। এই বর্ষা মৌসুমে যে ভাবে নদীটি চটেছে তাতে মনে হয় কোন সিনেমার শেষ দৃশ্যের চিত্রায়ন।

ঐ দিকে চরগোপালপুর অংশে যে ভাবে ভাঙ্গছে মনে হয় পশ্চিম দিক থেকে জাংঙ্গালিয়াকে ভেঙ্গে আসা মাসকাটা নদীর সাথে মিসে মহা-মিলন ছবির চিত্রায়ন শেষ করবে।

সত্যিই বড় খারাপ লাগছে এমন ভাবে ভাঙ্গছে তেতুলিয়া এই বর্ষায় মানুষের ঘর-বাড়ি নিয়ে দুঃখ -কষ্টের শেষ নাই ।কথায় আছে ঘরে আগুন লাগলে ভিটা ও উনুনের শেষ চিহ্ন টুকু থাকে যেখানে নতুন করে ঘর বাধার সপ্ন থাকে।কিন্তু নদীতে ভাঙ্গলে কিছুই থাকেনা। খুব কষ্ট লাগে সাজানো গোছানো দীর্ঘদিনের সংসার বাড়ি ঘর আজ নদীতে বিলীন হয়ে সবাই শেষ করে দিয়ে যাচ্ছে।চেনা লোকালয় আজ মানুষকে বড়ই অচেনা করে দিচ্ছে। যার আছে তার সাময়িক ক্ষতি কিন্তু যার এই শেষ সম্বলটুকু নদী গর্ভে যাওয়ার পর কিছুই রইলোনা তার কি হবে?
আমার মনে হয় মেঘনার পাড়ে (ইলিশা-জংশন) যে ভাবে নদী শোষন করা হয়েছে সে ভাবে বা তারও চেয়েও কম করে চেষ্ঠা করলে এই ভাঙ্গন ফেরানো যেতো।ঐতিজ্যবাহী শ্রীপুর, চরগোপালপুর এবং জাংঙ্গালিয়া আর তাদের ঐতিহ্য আর টিকিয়ে রাখতে পারলোনা।সবাই মিলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে এই অঞ্চলের যারা কর্মরত সবাইকে নিয়ে বড় ধরনের “শ্রীপুর,জাংঙ্গালিয়া ও চরগোপালপুর নদী ভাঙ্গা থেকে রক্ষায় করনীয় বিষায়ক”” সেমিনার করে আমাদের আগামীর করনীয় ঠিক করা উচিৎ। যাতে করে এখন অব্দি যেটুকু আছে তা যেন রক্ষা করা যায়।
এই নদীর ভাঙ্গনের সাথে সাথে আমাদের ইতিহাস,ঐতিহ্য, সংস্কৃতি সব কিছু নদীতে বিলীন হয়ে যাচ্ছে।তাইতো সকলের দৃষ্টি আর্কষন করে শেষ করছি মনির খানের সেই আবেগী বাস্তবতা নিয়ে গাওয়া গানের দুই লাইন দিয়ে—
নদীরে ও নদীরে তুই একটু দয়া কর,
ভাঙ্গিসনা আর বাপের ভিটা বসত বাড়ি ঘর।
মাথা গোজার যায়গা নাই আর দুনিয়ার উপর!!!

Share This Post

আরও পড়ুন